নভেম্বর / ২৯ / ২০২১ ০৮:১৯ অপরাহ্ন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

নভেম্বর / ২৫ / ২০২১
০৩:৫০ অপরাহ্ন

আপডেট : নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৮:১৯ অপরাহ্ন

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আবারও রাজধানীর রাস্তায় শিক্ষার্থীরা



21

Shares

নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) গাড়ির ধাক্কায় নিহতের ঘটনার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আবারও রাস্তায় নেমেছেন বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সরকারি বিজ্ঞান কলেজ, হলিক্রস কলেজসহ অন্তত ১০টি কলেজ ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা ফার্মগেট এলাকায় সড়ক অবরোধ করেন। এ সময় আশেপাশের এলাকায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়।  আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন গাড়ির ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষা করতে দেখা গেছে।  শিক্ষার্থীরা এ সময় 'নিরাপদ সড়ক চাই', 'উই ওয়ান্ট জাস্টিস' সহ নানা স্লোগান দেন।

সরকারি বিজ্ঞান কলেজের শিক্ষার্থী ইরাত আহমেদ  বলেন, 'আমরা ২০১৮ সালে নিরাপদ সড়কের জন্য রাস্তায় নেমেছিলাম। তখন কর্তৃপক্ষ নিরাপদ সড়কের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু দুই বছরেরও বেশি সময়ে কিছুই পরিবর্তন হয়নি। গতকাল, আরেকজন শিক্ষার্থী মারা গেছেন।' তিনি জানতে চান, 'নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীরা আর কতদিন রক্ত ​​দেবে?'  দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে হলি ক্রস কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন, 'বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে প্রতিদিন সড়কে মেধাবী শিক্ষার্থীসহ অনেকে জীবন হারাচ্ছেন। কিন্তু, মনে হচ্ছে যে এ সব দুর্ঘটনায় কর্তৃপক্ষ উদ্বিগ্ন নন। আমরা এসব বন্ধ করতে আবারও রাস্তায় নেমেছি।'

বন্ধুদের সঙ্গে বিক্ষোভে যোগ দেওয়া তেজগাঁও কলেজের শিক্ষার্থী কাওসার আহমেদ  বলেন, 'একের পর এক শিক্ষার্থী মারা যাওয়ার পর আমরা নিষ্ক্রিয়ভাবে বসে থাকতে পারি না। আমরা বিচার চাই বলেই এখানে এসেছি। আমরা নিরাপদ সড়ক চাই।' নিরাপদ সড়ক ও নাঈম হাসান নিহতের ঘটনার জড়িতদের বিচারের দাবিতে সকাল ১১টার দিকে রাস্তায় নামেন নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা নটরডেম কলেজের সামনে থেকে মিছিল বের করেন। মিছিলটি শাপলা চত্ত্বরে গিয়ে কিছুক্ষণ অবস্থান করে। পরে শিক্ষার্থীরা দুর্ঘটনাস্থল গুলিস্তানের যান। এ সময় তারা 'আমার ভাই কবরে, খুনি কেন বাইরে', 'উই ওয়ান্ট জাস্টিস' সহ বিভিন্ন স্লোগান দেন।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার কাছে নর্দ্দায় বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি)-এর শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হন। সেসময় সারাদেশে ক্লাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

তার আগে ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের দুটি বাসের রেষারেষিতে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের ২ শিক্ষার্থী নিহত হন। তাদের সহপাঠীরা বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় নামেন। এরপর, অন্যান্য স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের সঙ্গে যোগ দিলে সেই আন্দোলন দেশের বিভিন্নস্থানে ছড়িয়ে পড়ে।

২০১৮ সালের ২০ সেপ্টেম্বর সরকার শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে কঠোর শাস্তির বিধানসংবলিত একটি আইন সংসদে পাস হয়। এরপর প্রায় তিন বছর পেরিয়ে গেলেও সেই আইনটি এখনো পুরোপুরি কার্যকর হয়নি।

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

নভেম্বর / ২৫ / ২০২১
০৩:৫০ অপরাহ্ন

আপডেট : নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৮:১৯ অপরাহ্ন

জাতীয়