জানুয়ারী / ২০ / ২০২২ ০৩:০২ অপরাহ্ন

সোহেল মিয়া, দোয়ারাবাজার( সুনামগঞ্জ)

নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৬:১১ অপরাহ্ন

আপডেট : জানুয়ারী / ২০ / ২০২২
০৩:০২ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর আগমনে নরসিংপুর -নোয়ারাই সংযোগ সড়ক সংস্কারের দাবী



54

Shares

বাংলাদেশ সরকারের  পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি সুনামগঞ্জের শিল্পনগরী ছাতকে আগমনে দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউপির ও ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউপির মানুষের দাবী নোয়ারাই -নরসিংপুর -জোড়াপানি সড়কটি সংস্কার সহ শেখ রাসেল রোড়ে নামকরন।

নোয়ারাই - নরসিংপুর- জোড়াপানির এই সড়কটি দীর্ঘদিন দরে ব্যহাল অবস্থায় দূর্ভোগ চরমে। বর্তমান সরকারের আমলে চারদিক উন্নয়নের জোয়ারে ভাসলেও এই অবহেলিত নোয়ারাই - নরসিংপুর জোড়াপানি সংযোগ সড়কটির তা আর হয়ে উঠেনি। গ্রামীণ জনপদের এ অবহেলিত রাস্তাটি দৃশ্যমান আজও কোন উন্নয়নের ছোয়া পড়েনি । সামান্য বৃষ্টিতে সড়কটি পানিতে তলিয়ে যায়।

 নরসিংপুর ইউনিয়নের নিকটবর্তী ভারতের বর্ডারে আমদানীকৃত চুনাপাথর ব্যবসার কাজে যাতায়াতে ছাতকের বালি ও পাথর ব্যবসায়ীসহ নরসিংপুর ইউপির লক্ষাধিক মানুষের ব্যাবসা, শিক্ষা ও চিকিৎসার জন্য ছাতক শহর,জেলা শহর সুনামগঞ্জ ও বিভাগিয়  শহর সিলেটে যাতায়াতের জনগুরুত্বপূর্ন এই সড়কটির অবস্থা খুবি নাজুক। সড়কের বিভিন্ন স্থানে যথাসময়ে সংস্কার কাজ না হওয়ায় কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে শতাধিক বড় গর্তে। সড়কে প্রতিনিয়তো ঘটে যাচ্ছে ছোট-বড়  দূর্ঘটনা। তবুও জীবনের ঝুকি নিয়ে ১ যুগ ধরে চলাচল করছে এইসব এলাকার মানুষ। 

জানা যায়, ২০০৪ সালে বিএনপি সরকারের আমলে সড়কটি নির্মান হয়। পরবর্তীতে তত্বাবদায়ক সরকারের আমলে সড়কটির সংস্কার কাজ হয়।  ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসলে ২০১৭ সালে দ্বিতীয় বারের মতো  সড়কটির সংস্কার কাজ করলে ও বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সড়কটির কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হতে থাকে শতাধিক খানা খন্দে।  জনগুরুত্বপূর্ন এই সড়কটি দীর্ঘ ১ যুগ ধরে চলাচলের জন্য অনুপযোগী হয়ে পড়ায়  জনমনে নেমে এসেছে জনদূর্ভোগ ।

খানা খন্দ ভরপুর সড়কটি দিয়ে ঝুকি নিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছে শতাধিক যানবাহন। কয়েক বছর ধরে সড়কের ব্যাহাল অবস্থা থাকায় চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন এসব এলাকার মানুষ। সড়কের এই অবস্থার জন্য অনেক চাকরিজীবীরা সময়মতো তাদের গন্তব্যে পৌছাতে পারছেন না। শিক্ষার্থীরা পারছেনা সময় মতো তাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে। বিশেষ করে হাসপাতালে যেতে চরম বিপাকে পড়েছে গর্ভবতী মায়েরা। অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যার স্বিকার হচ্ছেন অনেকেই। 

২০২০ সালে সড়কের ব্যাহাল অবস্থার চিত্র নিয়ে  স্থানীয় সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিক এমপিসহ জেলা উপজেলার নেতৃবৃন্দদেরকে একটি মিডিয়া প্রতিবেদনের মাধম্যে অবগত করানো হলেও  কিন্তু সড়ক সংস্কারে এখনূব্দি কোনো সুরাহা পাওয়া যায়নি। এতে হতাশ উন্নয়নবঞ্চিত এলাকাবাসী। এবিষয়ে সিএনজি চালক নুর উদ্দিন  বলেন, জীবিকার তাগিদে প্রতদিন সড়কে ঝুকি নিয়ে বাধ্য হয়ে আমাদের গাড়ি চালাতে হচ্ছে।  প্রায় নষ্ট হচ্ছে গাড়ির বিভিন্ন যন্ত্রাংশ। আমরা এই সড়কটি সংস্কারসহ শেখ রাসেল রোড়ে নামকরণের দাবী জানাই।

 নোয়ারাই ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল খালিক পীর  বলেন, ১২ বছর ধরে এই ভাঙ্গা সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে আমাদের। যাতায়াতে গুনতে হচ্ছে দ্বীগুন বাড়াও। তাছাড়া সড়কের অবস্থা খারাপ থাকায় অনেক সময় দূর্ঘটনার  শিকার ও হয়েছেন অনেকে। জরুরি রুগি নিয়ে যথাসময়ে পৌছানো যাচ্ছেনা মেডিকেলে।  

উন্নয়নবঞ্চিত অবহেলিত এই সড়কটি স্থানীয় সাংসদ দেখে ও যেনো না দেখার বান করছে।   জনগুরুত্বপূর্ন এই সড়কটি সংস্কার কাজসহ শেখ রাসেল রোড় নাম করনে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি মহোদয়ের নিকট দাবী জানাই।

এ প্রসঙ্গে নরসিংপুর ইউপি'র চেয়ারম্যান নূর উদ্দিন আহমদ বলেন, যথাসময়ে সড়কের সংস্কার কাজ না হওয়ায় সৃষ্টি হয়েছে করুন অবস্থা। যার ফলে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কয়েকটি ইউনিয়নের মানুষকে। জরুরী ভিত্তিতে জনগুরুত্বপূর্ন এই সড়কটি সংস্কারসহ শেখ রাসেল রোড় নাম করনের জন্য আমরা মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির নিকট দাবী জানাই।

সোহেল মিয়া, দোয়ারাবাজার( সুনামগঞ্জ)

নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৬:১১ অপরাহ্ন

আপডেট : জানুয়ারী / ২০ / ২০২২
০৩:০২ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জ