নভেম্বর / ২৯ / ২০২১ ০৮:০২ অপরাহ্ন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

নভেম্বর / ২৪ / ২০২১
০৪:১৯ অপরাহ্ন

আপডেট : নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৮:০২ অপরাহ্ন

জৈন্তাপুর-গোয়াইনঘাটে ১১ বিদ্রোহীর চাপে নৌকার প্রার্থীরা



59

Shares

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সিলেটের জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাট উপজেলায় ৮ ইউনিয়নে ১১ জন বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। আওয়ামী লীগের স্থানীয় প্রভাবশালী নেতারা বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় বেকায়দায় পড়েছেন নৌকার প্রার্থীরা। ইতিমধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় তাদের আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারও করা হয়েছে। বহিষ্কৃত হলেও তারা দলীয় নেতাকর্মীদের প্রচ্ছন্ন সমর্থন পাচ্ছেন। তাদের প্রভাব নির্বাচনি মাঠে রয়েই গেছে।

গোয়াইনঘাট উপজেলার নন্দীরগাঁও, রস্তমপুর, লেংগুড়া, তোয়াকুল, ফতেহপুর ও ডৌবাড়ি ইউনিয়নে সাতজন, জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তা ও চিকনাগুল ইউনিয়নে দুজন করে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। আগামী ২৮ নভেম্বর এ দুই উপজেলার সব ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। 

গোয়াইঘাট উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৩৪ জন প্রার্থী রয়েছেন। এর মধ্যে সাতজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নন্দীরগাঁও ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ছয় প্রার্থীর মধ্যে দুজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী। প্রার্থীরা হলেন-উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান এস কামরুল হাসান আমিরুল। বিদ্রোহী প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম ও হীরক দে। স্বতন্ত্র মোড়কে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন আহমদ, মামুনুর রশীদ শাহীন, আব্দুল ওয়াহিদ।

রুস্তমপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আটজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আওয়ামী লীগের হেলাল উদ্দিন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল মতিন, বিএনপি ঘরানার স্বতন্ত্র চারজন প্রার্থী হলেন-আবুল কালাম আজাদ, শাহাব উদ্দিন শিহাব, হাবিবুর রহমান হাবিব ও সালেহ আহমদ। অন্য প্রার্থীরা হলেন-আব্দুল মজিদ সরকার ও আলী আমজাদ। লেংগুড়া ইউনিয়নে পাঁচজন প্রার্থী রয়েছেন। এর মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক, আওয়ামী লীগের প্রার্থী মুজিবুর রহমান মুজিব, বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও তৃণমূলে নির্বাচিত গোলাম কিবরিয়া রাসেল, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির মাহবুব আহমদ, সাবেক ছাত্রদল নেতা গোলাম কিবরিয়া ছত্তার ও বিএনপি নেতা আব্দুল মান্নান। তোয়াকুল ইউনিয়নে চারজন প্রার্থী রয়েছেন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান ও বিদ্রোহী প্রার্থী সামছুদ্দিন। স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির খালেদুর রহমান খালেদ ও ইসলামী আন্দেলনের আলীম উদ্দিন। ফতেহপুর ইউনিয়নে সাতজন প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগের নাজিম উদ্দিন এবং বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক আমিনুর রহমান চৌধুরী। স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির স্থানীয় প্রভাবশালী মিনহাজ উদ্দিন ও মীর হোসাইন আমির। অন্য স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন-ইসলাম আলী, মৌলানা নিজাম উদ্দিন ও শাহ্ আলম। ডৌবাড়ি ইউনিয়নে চারজন প্রার্থী রয়েছেন। উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সুবাস দাস ও বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় সম্পাদক নিজাম উদ্দিন। জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের এনামুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী দেলওয়ার হোসাইন।

জৈন্তাপুর উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ৯ জন, বিএনপির আটজন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের দুজন, জাতীয় পার্টির দুজন, স্বতন্ত্র ১০ জন ও জমিয়তের একজনসহ ৩২ জন প্রার্থী রয়েছেন।

জৈন্তাপুর ইউনিয়নে সাতজন চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন। নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক রাজা, আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী দুজন। তারা হলেন- আব্দুল হাই ও হুসেইন আহমদ। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন-আলমগীর হোসেন, আব্দুল আহাদ, ফখরুল ইসলাম ও নুরুল ইসলাম। চারিকাটা ইউনিয়নে আটজন চেয়ারম্যান প্রার্থী। তারা হলেন-আওয়ামী লীগের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী তুফায়েল, বিএনপি সমর্থিত আলতাফ হোসেন বিলাল, দেলোয়ার হোসেন আজাদ, সুলতান করিম, হেলাল উদ্দিন হেলাল, বদরুল ইসলাম ও আফজাল হোসেন। দরবস্ত ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী কুতুব উদ্দিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা বাহারুল আলম বাহার ও বিএনপির খাইরুল আমিন, জমিয়তের প্রার্থী মাসউদ আজহার, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী জসিম উদ্দিন সিকদার। ফতেপুর ইউনিয়নে তিনজন প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী রফিক আহমদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আব্দুর রশিদ ও মাওলানা তফাজ্জুল হোসাইন। চিকনাগুল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরুজ্জামান চৌধুরী। আওয়ামী লীগের দুই বিদ্রোহী প্রার্থী হলেন-আমিনুর রশীদ ও ফয়জুল হাছান। স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা এবিএম জাকারিয়া ও বিএনপি সমর্থক জাহাঙ্গীর আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী জাতীয় পার্টির জালাল আহমদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী হাফিজ আব্দুল মুছাব্বির ফরিদ, ইসলামী আন্দোলনের হাফিজ ফয়সল আহমদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সরওয়ার রহিম চৌধুরী মাঠে রয়েছেন।

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

নভেম্বর / ২৪ / ২০২১
০৪:১৯ অপরাহ্ন

আপডেট : নভেম্বর / ২৯ / ২০২১
০৮:০২ অপরাহ্ন

সিলেট