জুন / ২৬ / ২০২২ ০৭:১৪ পূর্বাহ্ন

নজরুল ইসলাম (গোয়াইনঘাট)::

মে / ১৬ / ২০২২
১০:৫১ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ২৬ / ২০২২
০৭:১৪ পূর্বাহ্ন

গোয়াইনঘাটে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরী বৈঠক, গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত



107

Shares

সিলেটের গোয়াইনঘাটে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৬ মে) দুপুর ৩ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ভার্চুয়ালি ও সরাসরি অংশ গ্রহন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফিয়া বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম আম্বিয়া কয়েছ, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি তানভীর হোসেন, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম নজরুল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শীর্ষেন্দু পুরকায়স্ত, উপজেলা প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, সমাজসেবা কর্মকর্তা আবু কাওছার, মধ্যজাফলং ইউনিয়নের প্রশাসক সুশান্ত কুমার দাস, ফতেহপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন, পূর্ব আলীরগাও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সদর ইউনিয়নের প্রশাসক আশরাফুল আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সুবাস চন্দ্র পাল ছানা, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ফারুক আহমদসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

সভায় জনপ্রতিনিধিগনের দাবীর প্রেক্ষিতে শুকনো খাবারের সিদ্ধাম্ত নেওয়াসহ মেডিক্যাল টিম গঠন, পুলিশের টহল টিম সার্বক্ষনিকের জন্য, খাবার স্যালাইন, মোমবাতি, ম্যাচ বিতরন ও ২০টি আশ্রয়কেন্দ্র সার্বক্ষনিক খোলা রাখার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়৷ উপজেলা কৃষি অফিসার ও পল্লীবিদ্যুৎ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে উপজেলা নির্বাহি অফিসার বলেন, যেহেতু আমাদের বোরো ফসল অনেকাংশে বন্যায় ক্ষপিগ্রস্থ হয়েছে, সেই ক্ষতি পুষানোর জন্য আমরা কৃষকদেরকে দিয়ে বুনো আউস চাষের মাধ্যমে চেষ্টা করবো এবং পল্লীবিদ্যুৎ শতভাগ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিদ্যুতের সংযোগ দিবেনা।

উল্লেখ্য যেগোয়াইনঘাটে বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। সোমবার ভোর থেকে উজান থেকে নেমে আসা পানি বিপদ সীমার অনেক উপড় দিয়ে প্রবাহিত হতে থাকে। যার ফলে গোয়াইনঘাটের সব কয়টি ইউনিয়নের বেশীর ভাগ ঘর বাড়ি, রাস্তাঘাট পানিতে ডুবে গেছে৷ সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় বন্যার পানিতে ডুবে গেছে উপজেলা প্রশাসনের মুল ফটকের রাস্তা, গোয়াইনঘাট হাসপাতাল রোড, গোয়াইনঘাট বাজার সহ যোগাযোগের সব কয়টি রাস্তা। এমতাবস্তায় গৃহবন্দী মানুষের হাহাকার বাড়ছে, বাড়ছে নিরাপত্তার শংকা। 

গতকাল মন্ত্রী ইমরান আহমেদের নির্দেশে উপজেলা প্রশাসনের দেয়া প্রতিটি ইউনিয়নে ২মেট্রিক টন করে ২৪মেট্রিক টন চাল বিতরণ ছাড়া আর কোন ত্রাণ কার্যক্রম চোখে পড়েনি। স্থানীয় জনগণ মনে করেন পানি যে হারে বাড়ছে তা অব্যাহত থাকলে ২০১২সালের বন্যাকে হার মানাবে। এই মূহুর্তে সারী নদীর পানি বিপদসীমার ৩০সেঃমিটার উপড় দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সকাল থেকে এখন পর্যন্ত কয়েক জায়গায় প্রবল স্রোতের কারনে বেশ কয়েকটি ঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ার খবর এসেছে। বন্যার পানিতে ভেসে গেছে গরু ছাগল ও মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ৷

নজরুল ইসলাম (গোয়াইনঘাট)::

মে / ১৬ / ২০২২
১০:৫১ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ২৬ / ২০২২
০৭:১৪ পূর্বাহ্ন

সিলেট