জুন / ২৬ / ২০২২ ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন

ক্রীড়া ডেস্ক

জুন / ০৮ / ২০২২
০৬:৩৯ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ২৬ / ২০২২
০৯:০৪ পূর্বাহ্ন

বাহরাইনের কাছে হেরে বাছাইপর্ব শুরু বাংলাদেশের



34

Shares

রক্ষণ আগলে রাখার ছক বেশিক্ষণ টিকল না। সেট-পিস নিয়ে যে ভীতি ছিল, তা থেকেই প্রথম গোল হজম করল বাংলাদেশ। গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর দারুণ কিছু সেভ সত্ত্বেও শক্তিশালী বাহরাইনের বিপক্ষে অনুমিতভাবেই হারল বাংলাদেশ।

মালয়েশিয়ার কুয়ালা লামপুরে বুকিত জলিল জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে ২-০ গোলে হারে বাংলাদেশ। প্রথমার্ধেই গোল দুটি হজম করে জামাল ভূঁইয়ারা। বাহরাইনের পক্ষে একটি করে গোল করেন আলী হারাম ও কামিল আল আসওয়াদ।

বাছাইপর্বের খেলায় `ই‘ গ্রুপে অবস্থান করছে বাংলাদেশ দল। এই গ্রুপে জামাল ভূঁইয়াদের সঙ্গে রয়েছে বাহরাইন, মালয়েশিয়া ও তুর্কমেনিস্তান।

ম্যাচের শুরু থেকে বাহরাইনের কাছে পাত্তাই পায়নি বাংলাদেশ দল। বল দখল কিংবা আক্রমণের হিসেবে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার ছিল র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে ৯৯ ধাপ এগিয়ে থাকা দলটির। আর প্রথমার্ধের খেলার অধিকাংশ সময় বাংলাদেশের ডি-বক্সেই ছিল বল।

বাংলাদেশি গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকোর নৈপুন্যে বেশ কয়েকটি গোল থেকে রক্ষা পেয়েছে জাভিয়ার হার্নান্দেস ক্যাবরেরার শিষ্যরা। ম্যাচের ৩৩তম মিনিট পর্যন্ত বাংলাদেশ বাহরাইনকে রুখতে সক্ষম হয়েছিল। কিন্তু প্রথমার্ধ শেষ হতেই খেয়ে বসে দুটো গোল।

৩৪তম মিনিটে কর্ণার থেকে আল হারামা দুর্দান্ত হেডে গোল করেন। বাহরাইনের এই ফরোয়ার্ডের সামনে টুটুল হোসেন বাদশা ছিলেন। বাংলাদেশি ডিফেন্ডার বল পাওয়ার আগেই লাফিয়ে হেড করেন বাহরাইনের গোলদাতা।

আর আট মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাহরাইন। কর্নার থেকে আসা বলটি বাংলাদেশের ডিফেন্ডাররা হেডে আংশিক ক্লিয়ার করেন। বল বক্সের বাইরে বাহরাইনের মিডফিল্ডার আল আসওয়াদের পায়ে পড়ে। দূর থেকে নেয়া তার শট জটলার মাঝ দিয়ে গোলরক্ষক জিকোকে পরাস্ত করে। এতে ২-০ গােলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাহরাইন।

৫৫তম মিনিটে নিশ্চিত গোল সেভ করেন জিকো। সতীর্থের নিখুঁত পাস অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলরক্ষককে একা পেয়ে যান আব্দুল্লাহ ইউসুফ হেলাল। বাহরাইনের এই ফরোয়ার্ডের শট ঝাঁপিয়ে আটকান ২৪ বছর বয়সী গোলরক্ষক।

এরপর একটু একটু করে খেলার গতি কমতে থাকে। বাহরাইনের মধ্যেও ব্যবধান বাড়ানোর মরিয়া ভাব ছিল না। ঘুরে দাঁড়ানো কঠিন জেনে বাংলাদেশ রক্ষণে নিজেদের মুড়িয়ে নেয় আরও বেশি করে।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়তে পারতো। সতীর্থের ব্যাক পাস ছুটে এসে স্লাইড করে বিপদমুক্ত করেন জিকো। কিন্তু দারুণ সব সেভ করেও ইন্দোনেশিয়া ম্যাচের মতো স্বস্তির হাসি সঙ্গী হয়নি এই গোলরক্ষকের, বাংলাদেশ দলের।

৪৩ বছর আগে কোরিয়ার মাটিতে বাহরাইনের কাছে এই ব্যবধানেই হেরেছিল বাংলাদেশ। এত বছর পরও হারের সেই ব্যবধান কমাতে পারেনি লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তবে ১৯৭৯ সালের বাহরাইনের সঙ্গে এই বাহরাইনের অনেক তফাৎ। সেই হিসেবে বাংলাদেশ গোল কম খাওয়ার যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল তাতে মোটামুটি সফলই বলা যায়।

ক্রীড়া ডেস্ক

জুন / ০৮ / ২০২২
০৬:৩৯ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ২৬ / ২০২২
০৯:০৪ পূর্বাহ্ন

খেলা