মে / ০৭ / ২০২১ ১০:২০ পূর্বাহ্ন

জৈন্তা বার্তা রিপোর্ট

এপ্রিল / ২৭ / ২০২১
০১:১৫ অপরাহ্ন

আপডেট : মে / ০৭ / ২০২১
১০:২০ পূর্বাহ্ন

আব্দুস সামাদ আজাদের মৃত্যুবার্ষিকী আজ


27

Shares

আজ ২৭ এপ্রিল আব্দুস সামাদ আজাদের ১৬তম মৃত্যুবার্ষিকী । তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন।  ত্রিকালদর্শী এ রাজনীতিবিদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পরিবারের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর বনানীতে মরহুমের কবর জিয়ারত ও পুস্পস্তবক অর্পণ করা হবে। বিকেলে কলাবাগানস্থ বাসভবনে মিলাদ ও ইফতার বিতরণ করা হবে। এছাড়া সিলেট, সুনামগঞ্জ, জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ দুয়া অনুষ্ঠিত হবে।

আব্দুস সামাদ আজাদ ১৯২২ সালের ১৫ জানুয়ারি সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার হাওরবেষ্টিত ভুরাখালি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৪০ সালে সুনামগঞ্জ জেলা মুসলিম ছাত্র ফেডারেশনের দায়িত্ব পালন করেন এবং ১৯৪৬ সালে একই সংগঠনের অবিভক্ত আসামের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনে তার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করা হয়। ১৯৫৪ সালে সাধারণ নির্বাচনে যুক্তফ্রন্ট থেকে এমএলএ নির্বাচিত হন এবং আওয়ামী লীগের শ্রম সম্পাদক নিযুক্ত হন। ১৯৭০ এর নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগ থেকে এমএনএ নির্বাচিত হন। মুক্তিযুদ্ধে প্রথম সারির সংগঠকদের একজন আব্দুস সামাদ আজাদ ছিলেন স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে তিনি আবারও দক্ষতার সাথে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

আব্দুস সামাদ আজাদ ব্রিটিশ আমলে ছাত্ররাজনীতি, পাকিস্তান আমলে তুখোড় রাজনীতিবিদ আর স্বাধীন বাংলাদেশের রাজনীতিতে অন্যতম নীতিনির্ধারকের ভূমিকা পালন করেন। সুনামগঞ্জের ঠিক হাওরের মাঝ থেকে এসেছেন উপমহাদেশের রাজনীতিতে। খুব কাছ থেকে দেখেছেন হাওরপাড়ের মানুষের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না। মানুষকে ভালোবেসেই আজীবন রাজনীতি করেছেন। হয়েছেন জননেতা। সিলেট অঞ্চলে ‘লিডার’ নামে তাকে ডাকা হত। ওই অঞ্চলে একটি কথা প্রচলিত আছে ‘লিডার একজনই তিনি আব্দুস সামাদ আজাদ’।

২০০৫ সালের ২৭ এপ্রিল জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা থাকাকালীন তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

রাজনীতি