১৪ এপ্রিল ২০২১ ১০:৪২ পূর্বাহ্ন     |    ই-পেপার     |     English
১৪ এপ্রিল ২০২১   |  ই-পেপার   |   English
মুন্সিগঞ্জের মিরকাদিমে বিস্ফোরণ
মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন মেয়রের স্ত্রীসহ দুজন
মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন মেয়রের স্ত্রীসহ দুজন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

এপ্রিল ০৭, ২০২১ ০৫:২৬ পিএম



মুন্সিগঞ্জের মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র আবদুস সালামের বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনায় মেয়রের স্ত্রী, চার কাউন্সিলরসহ ১৩ জন দগ্ধ হন। তাদের মধ্যে মেয়রের স্ত্রী কানন বেগম ও মনির হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তারা উভয়ই মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন।
জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ড. সামন্ত লাল সেন বুধবার (৭ এপ্রিল) বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মেয়রের স্ত্রী কানন বেগমের শরীরের ৮০ ভাগ পুড়ে গেছে। বর্তমানে তিনি শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি আছেন। মনির হোসেনের শরীরের ২০ ভাগ পুড়ে গেছে। তিনি বার্ন ইনস্টিটিউটের হাই-ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট- এইচডিইউতে ভর্তি।
ওই ঘটনায় দগ্ধ ১০ জনকে ছাড়পত্র দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তারা দুপুর থেকে বাড়িতে ফেরা শুরু করেছেন। বিস্ফোরণের পর মঙ্গলবার রাতেই দগ্ধদের জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়
সামন্ত লাল সেন আরও বলেন, দগ্ধদের মধ্যে গতকাল (মঙ্গলবার) রবিন নামের একজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। বিভিন্ন অংশে পোড়া নয়জন আশঙ্কামুক্ত হওয়ায় রিলিজ দেওয়া হয়েছে। তবে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমরা তাদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছি।
ছাড়পত্র পাওয়া ১০ জন হচ্ছেন- মিরকাদিম ২ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার ও প্যানেল মেয়র আওলাদ হোসেন (৭ শতাংশ দগ্ধ), ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার দ্বীন ইসলাম (৩ শতাংশ দগ্ধ), পৌরসভার সচিব সিদ্দিকুর রহমান (১২ শতাংশ দগ্ধ), মেয়রের পিএস যুবলীগকর্মী মো. তাজুল ইসলাম (৮ শতাংশ দগ্ধ), মো. হোসেন কালু (২ শতাংশ দগ্ধ), মাঈন উদ্দিন (৫ শতাংশ দগ্ধ), নৈশ্যপ্রহরী শ্যামল চন্দ্র দাস (৮ শতাংশ দগ্ধ), মেয়রের কর্মী মোশারফ হোসেন (৮ শতাংশ দগ্ধ) ও পান্নু হালদার (১২ শতাংশ দগ্ধ)।
বিস্ফোরণ গ্যাস লিকেজ থেকে : পুলিশ
মেয়র আবদুস সালামের বাড়িতে বিস্ফোরণ গ্যাস লিকেজ থেকে ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেছেন বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের সদস্যরা। বুধবার বেলা ১১টার দিকে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাজীব খান এ তথ্য জানান।
পরিদর্শক রাজীব খান বলেন, বিস্ফোরণের খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ও বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের সদস্যরাও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। গতকাল মঙ্গলবার সারাদিন মুন্সিগঞ্জে গ্যাস ছিল না। হয়তো গ্যাসের চুলার চাবি খোলা ছিল। এতে বাড়িতে গ্যাস জমে যায়। সমস্ত আলামত পর্যবেক্ষণ করে গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে নিশ্চিত হয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র আবদুস সালামের রামগোপালপুরের বাড়িতে পৌর কাউন্সিলর ও পৌরসভার কর্মীদের নিয়ে সভা করছিলেন। সে সময় বিস্ফোরণ ঘটে। এতে মেয়রের স্ত্রী, চারজন কাউন্সিলরসহ ১৩ জন দগ্ধ হন।

News Desk