১৯ জানুয়ারী ২০২১ ০২:১৯ পূর্বাহ্ন     |    ই-পেপার     |     English
১৯ জানুয়ারী ২০২১   |  ই-পেপার   |   English
বিষময় ২০২০ এর পর আসুক স্বস্তির ২০২১
বিষময় ২০২০ এর পর আসুক স্বস্তির ২০২১

কাসমির রেজা

ডিসেম্বর ৩১, ২০২০ ১০:৩৪ পিএম

অন্য দশটি বছরের মতো ২০২০ খ্রীষ্টাব্দকে আমরা স্বাগত জানিয়েছিলাম আনন্দ আহ্লাদে। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই বিষময় হয়ে উঠে বিশবিশ। করোনার ভয়াল থাবায় কেঁপে উঠে সারাবিশ্ব। একে একে দীর্ঘ হয় মৃত্যুর মিছিল। বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও সৌর্যবীর্জের দিকে শীর্ষে থাকা দেশ আমেরিকা, ইতালি সহ নানা দেশের ক্ষমতাবানরা যেন নতশীর হয়ে যান ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র এক জীবানুর কাছে। আপনজন হারানোর বেদনায় আর কান্নায় ভারী হয়ে উঠে আকাশ বাতাস। আমরা গৃহবন্দি হয়ে গেলাম। বন্ধ হয়ে গেল অফিস আদালত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে খাবার দোকান পর্যন্ত। দেখলাম এক ভিন্ন পৃথিবী। একে একে বাতিল হয়ে গেল দীর্ঘদিন থেকে প্রস্ততি নিয়ে রাখা বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক আয়োজন। করোনা থেকে বাঁচতে আমরা শুরু করলাম বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সতর্কবার্তা চালাচালি। বিজ্ঞানীরা শুরু করলেন টিকা আবিষ্কারের দৌড়ঝাপ। কেউ বললেন সেপ্টেম্বরে, কেউ বললেন অক্টোবরে টিকা পাওয়া যাবে। কেউ বললেন অপেক্ষা করতে হবে দীর্ঘদিন। অবশেষে সীমিত পরিসরে টিকা গ্রহণও শুরু হয়েছে। 

সিলেটবাসীর জন্যও বছরটি স্বস্তির ছিল না। দেশের করোনা যুদ্ধের ফ্রন্ট লাইনার ডাক্তারদের মধ্যে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে সিলেটে। আমরা হারাই স্বজ্জন চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল মঈন কে। সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন সিলেটের বর্তমান মেয়র আরিফুল হক ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। মেয়র আরিফ করোনার ধাক্কা সামলে উঠতে পারলেও সাবেক মেয়র কামরান তা পারেননি। সিলেটের মানুষ হারালো জনতার কামরানকে। আমরা হারিয়েছি মৌলভীবাজারের জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ আজিজুর রহমানকে। দেশে বিদেশে এমন অনেক স্বজনকে আমরা হারিয়েছি। প্রায় প্রতিদিনই পাওয়া গেছে কোনো না কোনো পরিচিত মানুষের পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে যাবার খবর। 

করোনার এই বিষাদের মাঝে আমাদের আরও ব্যথিত করেছে, ক্ষুব্দ করেছে কিছু মর্মান্তিক ঘটনা। তার একটি হলো এমসি কলেজ হেেেস্টলে গৃহবধুকে স্বামীর সামনে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা। শুধু সিলেট নয় এতে কেঁপে উঠে সারা দেশ। একের পর এক রাজনৈতিক সহিংসতায় মৃত্যুর সাথে এই ঘটনার কুশীলবদের মিল খুঁজে আবারও আলোচনায় উঠে আসে টিলাগড়। সমালোচিত হন টিলাগড়ের গডফাদাররা। 

টিলাগড়ের ঘটনার ক্ষোভ প্রশমিত হতে না হতেই বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে রায়হানের মৃত্যুতে আবারো ক্ষোভে ফেটে পড়েন সিলেটের মানুষ। দাবি উঠে এস আই আকবর সহ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের। নানা নাটকীয়তায় শেষে গ্রেপ্তার হয় আকবর। 

বছরের শুরুতে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞানও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদনে আনন্দের জোয়ারে ভাসেন সুনামগঞ্জবাসী। বছর শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নির্ধারণ নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠে সুনামগঞ্জ। হবিগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন হওয়ায় হবিগঞ্জবাসীও আনন্দে উদ্বেলিত হন। 

করোনায় বিপর্যস্ত হয় অর্থনীতি। অনেকেই চাকরী হারান। অনেকেই অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে দাাঁড়ান সহায়তা নিয়ে। সবশেষে অর্থনৈতিক ঝুঁকি কমাতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এক একে আমরা খুলে দেই ব্যবসা বাণিজ্য। বছর শেষে যুক্তরাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে মৃতের ঘটনা বাড়াতে দ্বিতীয় লন্ডন খ্যাত সিলেটের মানুষ শংকিত হয়ে উঠেন। 

করোনা আমাদের নানা শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে। আমরা পরিবারকে সময় দিতে শিখেছি। প্রকৃতি হয়ে উঠেছে সজীব ও প্রাণবন্ত। দূরে থেকে সভা, সেমিনার করতে শিখেছি। ঘরে থেকে অফিস করতে শিখেছি। করোনা কাল হয়তো এক সময় কেটে যাবে কিন্তু এসব অভিজ্ঞতা আমাদের কাজে লাগবে। ২০২০ এ মুজিববর্ষ সাড়ম্বরে পালন করতে না পারলেও ২০২১ এ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আমরা সাড়ম্বরে পালন করতে পারবো এমনটিই প্রত্যাশা রাখি। প্রত্যাশা রাখি করোনা মুক্ত স্বস্তির পৃথিবীর। ৭৫ বছর আগে প্রকৃতির কবি জীবনানন্দ দাশের লেখা কবিতার সাথে তাল মিলিয়ে বলতে চাই- ‘আমাদের দেখা হোক মহামারী শেষে/ আমাদের দেখা হোক জিতে ফিরে এসে। আমাদের দেখা হোক জীবাণু ঘুমালে/ আমাদের দেখা হোক সবুজ সকালে। আমাদের দেখা হোক কান্নার ওপারে/ আমাদের দেখা হোক সুখের শহরে।’

 

এন/সি