০১ ডিসেম্বর ২০২০ ০৫:৩৮ অপরাহ্ন     |    ই-পেপার     |     English
০১ ডিসেম্বর ২০২০   |  ই-পেপার   |   English
সিলেটের ল্যাব এইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ঝাড়ুদার দিয়ে এক্সরে!
সিলেটের ল্যাব এইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ঝাড়ুদার দিয়ে এক্সরে!

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ ০৯:৩৬ পিএম

নগরীর ল্যাব এইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ঝাড়ুদার দিয়ে করা হয় এক্সরে! তাদের এ ধরণের প্রতারণা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তুমুল সমালোচনা। প্রশিক্ষিত ট্যাকনেশিয়ান নয় আয়াদের দিয়েই অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজ করা হয় এ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে।

এ বিষয়ে বুধবার সকালে জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহেদ আহমদ ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। তাতে তিনি লিখেন, ‘ল্যাব এইড লিমিটেড (ডায়াগনস্টিক)   সিলেট এ হেলথ স্ক্রিনিং প্যাকেজ এর নামে রোগীদের সাথে প্রতারণা ও ধান্দাবাজি করছে। হেলথ স্ক্রিনিং প্যাকেজের  বিজ্ঞাপন এ কয়েকটি টেস্ট এবং সকালে সৌজন্য নাস্তা দেয়ার কথা বলে। এই টেস্ট গুলো করার জন্য আমি আজ সকাল আটটায় যাই। সোয়া আটটার দিকে ছয় হাজার টাকা জমা দিয়ে রক্ত ও প্রশ্রাব এর স্যাম্পল দেই। পরে ইসিজি,  ও আল্টাসনোগ্রাম  করার জন্য আরেকটি রুমে গেলে সেখানে বলে বিকেল তিনটা সাড়ে তিনটায় আসবেন। সৌজন্য নাস্তা না দিয়ে বাহিরে গিয়ে নাস্তা করে এসে এক্সরে করার কথা বলে। এক্সরে রুমে গেলে সেখানে একজন মহিলা আমার এক্সরে করার প্রস্তুতি নেন। যাকে আমি সকালে ফ্লোর ঝাড়ু দিতে দেখি। আমি উনাকে প্রশ্ন করলাম আপনি কি টেকনিশিয়ান?  উত্তরে উনি বললেন স্যার আমাকে আপনার স্ন্যাপ নেয়ার জন্য বলেছেন। আমি বললাম আপনার স্যারকে ডাকেন তখন তিনি বললেন স্যার দশ মিনিট পরে আসবেন। এর পর আমি কাউন্টারে গিয়ে বিষয় গুলো বললে তারা বলেন টেকশিয়ান আসেন নাই আপনি অপেক্ষা করেন। আমার বুঝতে বাকী রইল না এসব ধান্দাবাজি। ওরা ঝাড়ুদার, এসিস্ট্যান্ট এদের কে দিয়ে কাজ করিয়ে ডাক্তারদের সাক্ষর দিয়ে রিপোর্ট তৈরী করে। তাই আমি আমার টাকা ফেরত নিয়ে নিলাম। 

খবর নিয়ে জানলাম কয়েকজন অভিজ্ঞ ডাক্তার মিলে এই ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনা করেন। আপনাদের কাছে অনুরোধ মানুষের সাথে ধান্দাবাজি না করে সৎ পথে ব্যবসা করেন। মানুষের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে প্রতারণা করবেন না‘।

 

এ/ই ১০২